আপনার ৬ অভ্যাস ডেকে আনতে পারে অন্ধত্ব

বর্তমানে ডিজিটাল ডিভা’ইসের ব্যবহার অনেক বেড়ে গেছে। এর ক্ষতি’কারক প্রভাব পড়ছে আমাদের জীবনে। মোবাইল কম্পিউটারে বেশি সময় দেওয়ার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে আমাদের চোখের।

এ ছাড়া আমরা এমন কিছু বিষয়ে অভ্যস্ত হয়ে উঠছি, যার পরিণতি ডেকে আনতে পারে অন্ধত্ব। আসুন জেনে নিই সেই সম্পর্কে—

১. অতিরিক্ত রোদে থাকা
অতিরিক্ত পরিমাণে রোদে থাকলে আমাদের চোখের অনেক ক্ষতি করে। চক্ষুবিশেষজ্ঞ ও ফ্লোরিডার এলমকুইস্ট আই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ট্রেভর এলমকুইস্ট বলেন, বছরের যে কোনো সময়েই সূর্যের অতিরিক্ত এক্সপো’জার আমাদের চোখের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতিকারক।

২. ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার
চক্ষুবিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডিজি’টাল ডিভাইস ব্যবহারের সময় চোখের চাপ কমানোর জন্য প্রতি ২০ মিনিটে একবার বিরতি দিতে হবে। ২০ মিনিট স্ক্রি’নে তাকানোর পর ২০ মিনিটের জন্য বিরতি নিতে হবে এবং ২০ ফুট দূরের বস্তুতে ফোকাস করে তাকাতে হবে। আর এটি না করলে একসময় চোখের মারা’ত্মক ক্ষতি হতে পারে।

৩. ঘন ঘন চোখ ঘষা
ঘন ঘন চোখ ঘষলে চোখের অনেক ক্ষতি হয়। ইউনিভার্সিটি অব ঠলে’ডো মেডিকেল সেন্টারের অর্থোপেডিক সার্জন এমডি অ্যান্থনি কৌরি বলেন, চোখ খুব ঘন ঘন ঘষলে চোখের নিচে থাকা ছোট র’ক্তনালির মাইক্রো’ভাসকুলারের ক্ষতি হতে পারে।

৪. অপর্যাপ্ত ঘুম
অপর্যাপ্ত ঘুমের ফলে চোখের মারা’ত্মক ক্ষতি হয়। কৌরি বলেন, রাতে পর্যা’প্ত পরিমাণে না ঘুমালে সেটি বার্ধক্য প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করতে পারে। এ ছাড়া এটির ফলে চোখের ডার্ক সার্কেল, চো’খের ঝাঁকুনি এবং অস্পষ্ট দৃষ্টিশ’ক্তির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৫. ভুল কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার
আমরা অনেকেই কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এটির ভুল ব্যবহারের ফলে চোখ অন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ ছাড়া কন্টাক্ট লেন্স পরে থাকলে তা ব্যক্টেরিয়ার সংক্রমণ, প্রদাহের ঝুঁকি এবং চোখ শুকিয়ে গিয়ে চোখের অক্সিজেন কমে চোখ জ্বালা করার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৬. ডিজিটাল ডিভাইসে আসক্তি
ডিজিটাল ডিভাইস এমনিতেই আমাদের চোখের অনেক ক্ষ’তি করে থাকে। আর আপনি যদি আপনার মোবাইল ফোন ব্যবহারে আস’ক্ত হয়ে পড়েন, তবে এটি আপনাকে দৃ’ষ্টিশক্তি হারানোর মতো ক্ষতি করতে পারে। টেনেসির ন্যাশভিলের ওয়াং ভিশন ইনস্টিটিউটের একজন চক্ষু সার্জ’ন ও প্রতিষ্ঠাতা মিং ওয়াং বলেন, ডিজিটাল ডিভাইস এবং সেলফো’নের ব্যবহার চোখের উল্লেখযোগ্য চাপে অবদান রাখতে পারে।